অনন্য সৌন্দর্যের আধার ভারতের পর্যটন রাজ্য সিকিম। স্বপ্নের দেশের মতো সুন্দর এ রাজ্য ঘুরে দেখা ইচ্ছা ছিল অনেক দিনের। তাই স্বপ্নরাজ্য সিকিমে আমরা ৬ জন মিলে ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ এ ঢাকা থেকে সন্ধ্যা ৬ টার গাড়িতে যাত্রা শুরু করি। ফিরে আসি ২ মার্চ ২০১৯ সকাল ৯ টায়।

আমাদের পোর্ট ছিল ফুলবাড়ি, যেটা বাংলাদেশের পঞ্চগড়ের বাংলাবান্ধা পোর্ট। এই পোর্টে প্রতিদিন সর্বোচ্চ ৩০০-৪০০ মানুষ যাতায়াত করে। অতএব ইমিগ্রেশনের ঝামেলা একটু কমই। কিন্তু দুই দিকেই ট্রাভেল ট্যাক্স ছাড়া কিছু বাড়তি খরচ দিতে হয়। দিয়ে দিলে সমস্যা নাই, না দিলে একটু ঝামেলা করে। অতএব বাড়তি ঝামেলা না পাকানোর জন্যই দিয়ে দেওয়া ভালো।

ঢাকা থেকে বাংলাবান্ধা পোর্ট পর্যন্ত প্রতিদিন মোট তিনটা বাস যায়। হানিফের নন এসি একটা, শ্যামলী পরিবহন এর এসি একটা, আর একটা শ্যামলী পরিবহন এর এসি একটা। হানিফ ৬৫০ টাকা। শ্যামলী দুইটাই ১২-১৩০০ টাকা। সিট (২:২) যেটা ইকোনোমি ক্লাস।

এছাড়া পঞ্চগড় পর্যন্ত নাবিল, এনা, হানিফ, হুন্ডাই, স্কানিয়া বিজনেস ক্লাস (১:২ সিট) পাবেন। পঞ্চগড় পর্যন্ত গেলে সেখান থেকে লোকাল বাসে করে বাংলাবান্ধা যেতে সময় লাগবে ২ ঘন্টা।

বর্ডার ক্রস করে ইন্ডিয়ান বর্ডারে প্রবেশ করার আগে বিজিবির নিকট এন্ট্রি করাতে হয়। কারো ক্যামেরা থাকলে আগে থেকে এন্ট্রি করিয়ে নিতে হবে নতুবা ফেরার সময় ঝামেলা হতে পারে। এর পর ইন্ডিয়ান বিএসেফ টমটম (বাংলাদেশের ব্যাটারি চালিত অটো)’তে করে ইন্ডিয়ান ইমিগ্রেশন পর্যন্ত নিয়ে যায়, সেখানে ভাড়া বাবদ জন প্রতি ১৫ টাকা করে দিতে হয়।

ইমিগ্রেশনের কাজ শেষ করে টাকা রুপিতে করে সেখান থেকে টমটমে করে শিলিগুড়ি স্ট্যান্ড পর্যন্ত গিয়েছিলাম। সেখান থেকে গ্যাংটক পর্যন্ত বুলেরো নিয়েছিলাম। শেয়ার জীপে গেলে একই বুলেরোতে ২৫০ করে নেয় কিন্তু সেক্ষেত্রে এক বুলেরোতে সামনে দুই জন আর পেছনে ৪ জন করে মোট ১০ জন বসিয়ে নেয়। যা খুবই কষ্ট সাধ্য, আমরা এক গাড়ি রিজার্ভ নিয়েছিলাম ৬ জনের জন্য।

এখানে বলে রাখা ভালো ভুলেও সেখানকার কোনো ট্রাভেল এজেন্সির সাথে কোনো রকম কন্ট্রাক্ট বা প্যাকেজে যাবেন না। কোন রকম মানে একদমই না। জীপ ভাড়া নিবেন ড্রাইভার দের সাথে দর কষা-কষি করে। কারণ শিলিগুড়ির ট্রাভেল এজেন্সিরা প্রথমে মিষ্টি কথা বলে পরে জায়গা মতো গিয়ে গলা কাটে।

গাড়ি ভাড়া করার সময় বলে নিবেন র‌্যাংপোতে পারমিশনের জন্য ৩০ মিনিট থামাতে, যদিও ১৫ মিনিটের বেশি সময় লাগবে না, তবুও আগে থেকে কথা বলে নিবেন না হলে ওয়েটিং চার্জ কাটবে ইচ্ছামত। আমরা একবারে কথা বলে নিয়েছিলাম যত সময় লাগুক সেটা দেখার বিষয় না থামাতে হবে।
(চলবে)

First, since the evidence suggests https://get-thesis.com/ that computer technologies generally improve student achievement overall, and no baleful results were found, there should be more computer use by students regardless of social class or geographic location.